বাগেরহাটে ৮ দফা দাবিতে গণপরিবহন ধর্মঘট শুরু

নিজস্ব প্রতিনিধি:
সড়ক পরিবহণ আইনের কয়েকটি ধারা সংশোধনসহ ৮ দফা দাবিতে বাগেরহাটে রবিবার সকাল থেকে দূরপাল্লাসহ অভ্যন্তরীণ রুটে গণপরিবহন ধর্মঘট শুরু হয়েছে। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকে ৪৮ ঘন্টার এই ধর্মঘট পালন করছে বাগেরহাটের পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা। ধর্মঘটের প্রথম দিন রবিবার সকালে বাগেরহাট কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ দূরপাল্লার কোন পরিবহন ছেড়ে যায়নি। জেলার অভ্যন্তরীণ রুটেও কোন পরিবহন চলছে না। গণপরিবহন ধর্মঘটের ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা। গন্তব্যে যেতে না পেরে সাধারণ যাত্রীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। বাগেরহাট জেলার পরিবহন শ্রমিকরা নিজেরা গণপরিবহন চালানো বন্ধ করে দেয়ার পাশাপাশি চালক ও শ্রমিকরা বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নিয়ে থামিয়ে দিচ্ছেন অটোরিকশাসহ বিকল্প সব পরিবহন। বাগেরহাট কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, শরণখোলা, মোরেলগঞ্জ, কচুয়া, সাইনবোর্ড, মোংলা, রামপাল, চিতলমারী, ফকিরহাট ও মোল্লাহাট বাস স্ট্যান্ড থেকে দূরপাল্লাসহ অভ্যন্তরীণ রুটে কোন পরিবহন যাতায়াত করছে না। এসব স্থানে মানুষকে দীর্ঘ সময় ধরে গণপরিবহনের জন্য অপোয় থাকতে দেখা গেছে।

বাগেরহাটের শ্রমিক নেতারা জানায়, সড়ক পরিবহন আইনে দুর্ঘটনাকে দুর্ঘটনা হিসেবে গণ্য না করে, অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়েছে। আইনে সড়ক দুর্ঘটনা মামলায় অপরাধী হয়ে ফাঁসির ঝুঁকি রয়েছে। এতে আতঙ্কগ্রস্থ হয়ে দায়িত্ব পালন করা চালক ও শ্রমিকদের পে সম্ভব হচ্ছে না। গণপরিবহন ধর্মঘটের কারনে দূরপাল্লার যাত্রীসহ ভোগান্তিতে পড়েছেন কর্মস্থলগামী মানুষ ও স্কুল-কলেজগামী ছাত্র-ছাত্রীরা। অন্যদিকে, গণপরিবহন ধর্মঘট জনভোগান্তির  অবসান দাবি করেছেন সাধারণ যাত্রীরা।