বাগেরহাটে ১৮ প্রার্থীর জামানত বাতিল

বাগেরহাটে ৪ টি সংসদীয় আসনে ২২ প্রার্থীর মধ্যে ভোট প্রাপ্তির হিসেবে ১৮ প্রার্থীর জামানত বাতিল হয়েছে। অংশগ্রহন করা প্রার্থীদের মধ্যে শুধুমাত্র বিজয়ী প্রার্থীদের জামানত রক্ষা হয়েছে। বুধবার বাগেরহাট জেলা নির্বাচন অফিস থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।
মোট প্রদত্ত ভোটের চেয়ে আট ভাগের এক ভাগ ভোট না পাওয়ায় সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ছাড়া সকল প্রার্থীই জামানত হারিয়েছেন।
জামানত হারানো প্রার্থীরা হলেন, বাগেরহাট ১ (চিতলমারী, ফকিরহাট ও মোল্লাহাট) আসনে বিএনপি প্রার্থী শেখ মাসুদ রানা, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মোঃ লিায়াকত হোসেন শেখ ও মুসলিম লীগ-র এম.ডি শামসুল হক।
বাগেরহাট ২ (সদর ও কচুয়া) আসনে বিএনপি প্রার্থী এম এ সালাম, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মোঃ আঃ আউয়াল, জাকের পার্টি প্রার্থী খান আরিফুল ইসলাম, স্বতন্দ্র প্রার্থী এস এম আজমল হোসেন ও রেজাউর রহমান মন্টু।
বাগেরহাট ৩ (রামপাল ও মোংলা) আসনে ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী মোঃ আব্দুল ওয়াদুদ শেখ (জামায়াত নেতা), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মওলানা শাহ জালাল সিরাজী, জাকের পার্টি-র মোঃ রেজাউল শেখ, জাতীয় পার্টি-র মোঃ সেকেন্দার আলী মনি।
বাগেরহাট ৪ (মোরেলগঞ্জ-শরণখোলা) আসনে ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী মোঃ আব্দুল আলীম (জামায়াত নেতা), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মওলানা আব্দুল মজিদ হাওলাদার, জাতীয় পার্টি প্রার্থী সোমনাথ দে, টেলিভিশন প্রার্থী মোঃ রিয়াদুল ইসলাম (আফজাল), সিপিবি-র শরিফুজ্জামান তালুকদার জামানত হারিয়েছেন।
বাগেরহাট জেলার ৪ টি আসনে মোট ২২ জন প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের ৪ জন ছাড়া বাকী ১৮ জন প্রার্থীই জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে।
বাগেরহাটের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ^াস বলেন, গনপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) অনুযায়ী মোট প্রদত্ত ভোটের আট ভাগের এক ভাগ ভোট না পেলে জামানত বাজেয়াপ্ত হবে। সেই অনুযায়ী যে সকল প্রার্থী আট ভাগের এক ভাগ ভোট পায়নি তাদের জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে।