বাগেরহাটে পুকুর খননের সময় খানজাহান আমলের পাথর উদ্ধার

বাগেরহাটে পুকুর খননের সময় খানজাহান আমলের একটি ৮ কোনাকার বেলে পাথরের স্তম্ব পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যার আগ মুহুর্তে সদর উপজেলার কাড়াপাড়া গ্রামের কালিকার পুকুর খননের সময় এটি পায় শ্রমিকরা। পরে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মোঃ দিদারুল আলম এটিকে নিয়ে তার বাড়িতে রাখেন। পাথর পাওয়ার খবর পেয়ে বাগেরহাট প্রত্নতত্ব অধিদপ্তরের কাস্টোডিয়ান গোলাম ফেরদাউস ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পাথরটি বাগেরহাট জাদুঘরে সংরক্ষণ করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।


স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মোঃ দিদারুল আলম জানান, জনসাস্থ প্রকৌশল অধিদপ্তর কালিকার পুকুরটি স্কেভেটর দিয়ে খনন করছে। খননের এক পর্যায়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যার কিছু আগে শ্রমিকরা পাথরটি পায়। পরে আমরা পাথরটি আমাদের বাড়িরর সামনে এনে রাখি। আট কোনা বিশিষ্ট পাথরটি প্রায় ৪ ফুট লম্বা। পাথর দেখতে এলাকার লোকজন ভীড় করছে।
বাগেরহাট প্রত¦তত্ব অধিদপ্তরের কাস্টোডিয়ান গোলাম ফেরদাউস বলেন, পাথরটি বাগেরহাট খানজাহান আলী (রহঃ) এর বসত বাড়ি, ষাটগম্বুজ মসজিদ ও বড় আদিনা মসজিদের স্থাপনার সাথে সাদৃশ্য রয়েছে। খানজাহানের সমসাময়িক স্থাপনার পিলারের অংশ বিশেষ বলে ধারণা করা হচ্ছে। পুকুরের আশপাশে কোন প্রাচীন স্থাপনার ধ্বংসাবশেষের একটি অংশ এ পাথর। পাথরটিকে আমরা বাগেরহাট জাদুঘরে সংরক্ষণ করব।
তিনি আরও বলেন, ষাটগম্বুজ মসিজদের উত্তর ও দক্ষিনের ছয় কিলোমিটার এবং পূর্ব পশ্চিমে আড়াই কিলোমিটার এলাকা জুড়ে প্রাচীন আমলের স্থাপনা রয়েছে। ওই এলাকা জুড়ে এধরণের আরও পাথর থাকতে পারে।