ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় জেলা প্রশাসনের ব্যাপক প্রস্তুতি, সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদের ছুটি বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদক.  ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে বাগেরহাট জেলা প্রশাসন।এর অংশ হিসেবে জেলার সকল ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্রসহ সব ধরণের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি সকল সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করেছে জেলা প্রশাসন। এছাড়া সকল উপজেলা একটি করে মেডিকেলটিম ও কন্ট্রোলরুম খোলা হয়েছে। শুক্রবার বেলা ১২টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা দূযোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। দূযোগ মোকাবিলায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল ইসলামকে জেলার ফোকাল পার্সণ হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। জেলা প্রশাসক মোঃ মামুনুর রশীদের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন, পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায়, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক দেব প্রসাদ পাল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক কামরুল ইসলাম, সদর উপজেলা নিরবাহী কর্মকর্তা শেখ তানজিল্লুর রহমান, পানি উন্নয়ণ বোর্ড, বাগেরহাটের নির্বাহী প্রকৌশলী নাহিদুজ্জামান খান, রেড ক্রিসেন্ট কর্মকর্তা অধ্যাপক বুলবুল কবির, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স বাগেরহাটের উপ সহকারী পরিচালক মাসুদ সরদারসহ সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় জেলা প্রশাসক মোঃ মামুনুর রশীদ জানান, জেলায় ২৩৪ টি ঘূর্নিঝড় আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রয়েছে। দূর্যোগের খবর নেওয়া, জানা, কোথাও কোন বড় ধরণের সমস্যা হলে তাৎক্ষনিকভাবে খবর নেওয়ার জন্য জেলায় ১০টি কন্ট্রোলরুম খোলা হয়েছে। প্রত্যেক উপজেলায় আমাদের মেডিকেল টিম প্রস্তুত রয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের স্থানীয়

জনপ্রতিনিধিদের সাথে সমন্বয় রেখে জনসাধারণকে সচেতন করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা স্ব-স্ব উপজেলায় সভা করবেন। এছাড়া সমুদ্রে থাকা সকল নৌযানকে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। পাশাপাশি কোনো নৌযান নির্দেশ অমান্য করে যাতে চলতে না পারে সে জন্য সংশ্লিষ্ট দের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এদিকে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যরা স্ব উদ্যোগে পরিষদে সভা আহবান করে নিজ এলাকার জনসাধারণকে সতর্ক থাকার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন। এজন্য কোন কোন এলাকায় মাইকিংও করা হয়েছে। শরণখোলা উপজেলার রায়েন্দা ইউপি চেয়ারম্যান আছাদুজ্জামান মিলন বলেন, ইতোমধ্যে আমরা দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা করেছি। ওয়ার্ড পর্যায়ে ইউপি সদস্যরা জনসাধারণকে সচেতন করছেন। এছাড়া ঘূর্নিঝড় আশ্রয়কেন্দত্রগুলোকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। পাশপাশি আমারে নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবকরাও প্রস্তুত রয়েছেন। সরকারি প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বেসরকারি বিভিন্ন সংগঠনও বুলবুল-র মোকাবিলায় নানা প্রস্তুতি নিয়েছে বলে জানিয়েছেন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা রুপান্তরের জেলা সমন্বয়ক আলমগীর হোসেন মীরু।