খানজাহান আলী (রহঃ) মাজারে দুইদিন ব্যাপি ওরশ শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক. আধ্মাতিক সাধক বিশ্বখ্যাত মুসলিম মনিষী খানজাহান (রহঃ)র ওফাত দিবস উপলক্ষে খানজাহান আলী মাজারে দুই দিন ব্যাপি বাৎসরিক ওরস শুরু হয়েছে। ২৪ অগ্রহায়ন সোমবার (৯ ডিসেম্বর) ফরজরের নামাজের পর আনুষ্ঠানিকভাবে ওরশ মোবারক শুরু হয়। তবে বিকেল থেকে ভক্ত ও দর্শনার্থীদের ভীড় বৃদ্ধি পেতে থাকে মাজার এলাকায়।হাজার হাজার ভক্ত ও দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে মাজার প্রাঙ্গন। রাতে যে যার মত স্রষ্ঠার আরাধনা করবেন। মঙ্গলবার ফজর নামাজ শেষে মাজার কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে আয়োজিত তাবারক খাবেন সকল ভক্তরা। ২৫ অগ্রহায়ন মঙ্গলবার(১০ডিসেম্বর) বিকেলে এ ওরশ শেষ করে যে যার গন্তব্যে ফিরে যাবেন।

সোমবার সন্ধ্যায় মাজার এলাকায় দেখা যায় ভক্তদের উপচে পড়া ভীড়। ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সব শ্রেণির হাজার হাজার মানুষ এসেছেন ওরশ শরীফে। মাজার কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে তাদের জন্য কোন প্রকার থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা নেই। তারপরও সকলে খুশি এখানে এসে।কেউ পাটি লেছে, কেউ ছালা বিছিয়ে, কেউ কাথা বিছিয়ে যে যার মত করে থাকছে। অনেক আবার দুই দিনের খাবার নিয়ে এসেছেন।কেউ কেউ আবার মাজারে নিজেদের ব্যবস্থাপনায় রান্না করে খাবেন। প্রত্যেকে নিজ নিজ ধর্মমতে আরাধনা করছেন সৃষ্টিকর্তার।তবে মুসলিম সম্প্রদায়ের দর্শনার্থীর সংখ্যাই বেশি।

নানা বয়সী মানুষ এসেছেন নিজ মনোবাসনা পূর্ণ করতে। কেউ আসছেন মাজারে বিভিন্ন মানত পরিশোধ করতে।ওরসের তাবারক খেয়ে রোগ মুক্তির আশায় অপেক্ষা করছেন অনেকে।প্রায় ৬‘শ বছরের ঐতিহ্যবাহী এই ওরস দেখতেও আসছেন কেউ কেউ।

খানজাহান ভক্ত রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকার মোঃ হাসিব হাসান খোকন বলেন, হযরত পীর খানজাহান আলী(রহ)এখানে ঘুমিয়ে আছেন। ঘুমিয়ে থেকে তিনি অনেক অলৌকিক হিসাব বুঝিয়ে দেন। যা কাগজ কলমে বুঝানো যাবে না।

মুজিবর রহমান ভান্ডারি বলেন, ছোট বেলা থেকে খানজাহানের মাজারে আসি। এই সময় আসলেই ছুটে আসি মাজারে। ওরসে আসলে খুব ভাল লাগে।

খুলনার ইউছুপ বলেণ, আমরা অনেকেই আসছি মাজারে। কিছু মানত ছিল। পরিশোধ করলাম। রাতে থাকব গান বাজনা করব। ফকিরদের ওয়াজ নসিহত শুনব। ওরস শেষে চলে যাব পীরের দোয়া নিয়ে।

আরও কয়েক জন ভক্ত বলেন, ওরসের সময় হাজার হাজার মানুষ আসে মাজারে। খানজাহান ভক্তদের মিলন মেলায় পূর্ণ হয় মাজার। পীরের দোয়া আল্লাহর রহমত পেতে এখানে আসি আমরা।

বাগেরহাট মাজারের প্রধান খাদেম ফকির শের আলী বলেন, প্রায় ৬‘শ বছর ধরে বাগেরহাটের খানজাহান আলী মাজারে বাৎস্যরিক ওরশ মোবারক পালিত হয়। এ দুই দিনে লক্ষ লক্ষ ভক্ত ও দর্শনার্থীরা এখানে ভীড় জমায় সৃষ্টি কর্তার সন্তুষ্টির জন্য। শুরু হওয়ার আগের দিনই বিভিন্ন জেলা থেকে দর্শনার্থী ও ভক্তবৃন্দের সমাগম হয়। সোমবার সকালে ফজরের নামাজের পর থেকেই এ ওরশের কার্যক্রম শুরু হয়। প্রশাসন, সাংবাদিক ও স্থানীয় সকলের সহযোগিতায় আমরা আগত ভক্তবৃন্দের জন্য সকল প্রকার নিরাপত্তার ব্যবস্থা করে থাকি।