বাগেরহাটে ইউপি সদস্যের চোখ উপড়ে ফেলার মামলায়, গ্রেফতার ৩

বগেহাটের মোরেলগঞ্জে ইউপি সদস্য ও যুবলীগ নেতা নাজমুল হাসান রানার (৪০) চোখ উপড়ে ফেলা মামলায় লিয়াকত কাজী (৪৫) নামের আরও একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে উপজেলার বহরবুনিয়া ইউনিয়নের এক নিকট আত্মীয়ের বাড়ি থেকে লিয়াকতকে গ্রেফতার করা হয়। এ নিয়ে এই মামলায় মোট তিনজনকে গ্রেফতার করল পুলিশ।
গ্রেফতারকৃতরা হলেন, উপজেলার শেখপাড়া এলাকার লিয়াকত কাজী (৫৫), মহারাজ খান (৪৫) এবং শাহজালাল আকন(৪০)।
এর আগে মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রæয়ারি) সন্ধ্যায় ১৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ১০-১২ জনকে আসামী করে যুবলীগ নেতা রানার বড় ভাই ফারুক হাওলাদার মোরেলগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেন। ওইদিন রাতে শাহজালাল আকনকে এবং বুধবার ভোরে মহারাজ খানকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
মোরেলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম আজিজুল ইসলাম বলেন, ঘের সংক্রান্ত শত্রæতার কারনে এ ঘটনা ঘটেছে বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে। আমরা এজাহার নামীয় তিন আসামীকে আটক করেছি। এদের মধ্যে দুইজনকে আদালতে সোপর্দ করেছি। লিয়াকত কাজীকে আদালতে সোপর্দের প্রস্তুতি চলছে। অন্য আসামীদের আটকের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান তিনি।
এর আগে সোমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত ১টার দিকে বাগেরহাট-৪ আসনের উপ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আমিরুল আলম মিলনের সাথে দেখা করে বাড়ি ফেরার পথে উপজেলার শেখপাড়া বাজার এলাকায় পৌছালে পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা ১৫-২০ জন রানার উপর হামলা করে। পরে গুরুত্ব আহত অবস্থায় তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে স্বজনরা। পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা থেকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।#