বাগেরহাটে আইসোলেশনে থাকা তিন রোগী করোনা আক্রন্ত নয়

নিজস্ব প্রতিবেদক. বাগেরহাটে সদর হাসপাতাল ও কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আইসোলেশনে থাকা ৩ রোগীর কেউই করোনা আক্রন্ত নয়। সোমবার দুপুরে বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে শনিবার (৪ এপ্রিল) করোনা ভাইরাস আক্রন্ত সন্দেহে পর্যবেক্ষনের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ৪২ বছর বয়সী এক গৃহবধ কে আইসোলেশনে নেওয়া হয়। একই দিন কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মধ্য বয়সী পুরুষকে আইসোলেশনে নেওয়া হয়। তার আগে বৃহস্পতিবার (০২ এপ্রিল) দুপুরে ২২ বছর বয়সী এক পুলিশ সদস্য জ্বর, সর্দি,কাশি নিয়ে হাসপাতালে আসলে তাকে আইসোলেশনে পাঠানো হয়। এদের নমুনা সংগ্রহ করে কোভিড-১৯ সংক্রমনের উপস্থিতি পরীক্ষার জন্য রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) এর পরীক্ষার জন্য পাঠায় বাগেরহাট জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। আইইডিসিআর‘র পরীক্ষার রিপোর্টে আইসোলেশনে থাকা এই তিন রোগীর কারও শরীরেই নভেল করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) এর উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।
বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির বলেন, বাগেরহাট সদর হাসপাতালে দুইজন এবং কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একজন রোগী আইসোলেশনে ছিলেন। তাদের নমুনা সংগ্রহ করে আমরা আইইডিসিআর এ পাঠিয়েছিলাম। আইইডিসিআর আমাদেরকে জানিয়েছেন এদের কারও শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি নেই। এর আগে দেশে করোনা ভাইরাসের রোগী সনাক্ত হওয়ার পর বাগেরহাট সদর হাসপাতালে তিনজন এবং শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দুইজন আইসোলেশনে ছিলেন। তাদের শরীরে কোভিড-১৯ এর উপস্থিতি না থাকায় তারা সবাই নিজ নিজ বাড়িতে স্বাভাবিক জীবন যাপন করছেন বলে জানিয়েেেছ জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।