করোনায় লেখাপড়া নিয়ে দুশ্চিন্তায় ভুগছি

করোনায় লেখাপড়া নিয়ে দুশ্চিন্তায় ভুগছি। আমি উচ্চ মাধ্যমিক প্রথম বর্ষের একজন ছাত্র।সময়মতো পরীক্ষা হলে এতদিনে দ্বিতীয়বর্ষে ওঠার কথা ছিল। কিন্তু করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ করার জন্য স্কুল-কলেজ সব বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আমাদের পরীক্ষাটাও সময় মতো হয়নি।লেখাপড়ার যে স্বাভাবিক গতি ছিল প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় সেই গতি কিছুটা কমেছে।সরকার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক এর ছাত্র ছাত্রীদের জন্য টেলিভিশনে বিশেষ ক্লাসের ব্যবস্থা করেছে। উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে এধরনের কোনো ব্যবস্থা নেই।আমরা উচ্চমাধ্যমিকের ছাত্রছাত্রীরা প্রাইভেট টিচারের কাছে পড়তে পারছিনা। শিক্ষা জীবন থেকে হারিয়ে যাচ্ছে এক একটি দিন। উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা জীবন জীবনের সবচেয়ে কঠিন সময়,পাঠ্য শিক্ষার পাশাপাশি নিজেকে তৈরি করতে হয় ভার্সিটি ভর্তি যুদ্ধের জন্য। ফলে পিছিয়ে পড়ছি আমরা। বেসরকারিভাবে অনলাইনে উচ্চমাধ্যমিকের অনেক ক্লাস আছে যেগুলো করতে পারলে হয়তো কিছুটা উপকৃত হতাম। কিন্তু একজন শিক্ষার্থী হয়ে মোবাইলে ইন্টারনেট রিচার্জ করে ক্লাস করা কষ্টের ও সামর্থ্যের বাইরে। সরকার যদি আমাদের উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের জন্য টেলিভিশনে বিশেষ ক্লাসের ব্যবস্থা করত তাহলে এই সমস্যার সমাধান হতো অথবা ইন্টারনেট ব্যবস্থা ফ্রি করে দিত তাহলে উপকৃত হতাম।।

লেখাটি বাগেরহাট বহুমুখী কলেজীয়েট স্কুলের উচ্চমাধ্যমিক প্রথম বর্ষের ছাত্র আসাদুজ্জামান মীর এর ফেসবুক ওয়াল থেকে সংগৃহীত।