মোংলা বন্দরের কর্ম চাঞ্চল্যের উপর নির্ভর করে এ অঞ্চলের নৈতিক সম্মৃদ্ধি …সিটি মেয়র

এস.এস শোহান,মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেলের জয়মনির গোল থেকেঃ এই (দক্ষিন) অঞ্চলের অর্থনৈতিক সম্মৃদ্ধি নির্ভর করে মোংলা বন্দরের কর্ম চাঞ্চল্যের উপর। যার ফলে বাগেরহাট-খুলনাসহ আমাদের এলাকার মানুষ বন্দরের উন্নয়ন কাজে সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করেন।তারপরও কিছু মানুষ রয়েছে যারা সরকারের উন্নয়ন কাজকে বাধাগ্রস্থ করতে চায়। মোংলা বন্দর ইনারবার ড্রেজিংসহ চলমান উন্নয়ন কাজকে যদি কেউ বাধা গ্রস্থ করতে চায় তাহলে আমাকে বলবেন কঠোর হস্তে দমন করা হবে।

মোংলা বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধি ও বন্দর জেটিতে নির্বিঘ্নে জাহাজ আগমন নিশ্চিত করতে ৭শ ৯৩ কোটি ৭২ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা ব্যয়ে ইনারবার ড্রেজিং প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক এই হুশিয়ারূ দেন।

তিনি আরও বলেন, জামাত-বিএনপি হোট সরকার মোংলা বন্দরকে একটি মৃত বন্দর বানিয়ে ফেলেছিল। আওয়ামীলীগ  সরকার ক্ষমতায় এসে এই বন্দরের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। বন্দরের কার্যকারিতা কয়েকগুন বৃদ্ধি পেয়েছে। কয়েক হাজার কোটি টাকার উনয়ন প্রকল্প চলমান রয়েছে। অদূর ভবিষ্যতে পদ্মদ সেতু নির্মান শেষ হলে এই বন্দরের ব্যস্ততা আরও বৃদ্ধি পাবে। যার ফলে দক্ষিনাঞ্চলের মানুষের ব্যাপক আর্থিক উন্নয়ন ঘটবে বলে দাবি করেন মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক।

শনিবার (১৩ মার্চ) দুপুরে মোংলার জয়মনির গোল নামক স্থানে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, নৌপরিবন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের হাবিবুন নাহার, এমপি, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব  মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী। 

এসময় বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক আ.ন.ম ফয়জুল হক, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য (হারবার ও মেরিন) ক্যাপ্টেন এম আব্দুল ওয়াদুদ তরফদার, সদস্য (প্রকৌশল ও উন্নয়ন) মোঃ ইমতিয়াজ হোসেন, পরিচালক (প্রশাসন) মোঃ গিয়াস উদ্দিন, ইনারবার ড্রেজিং প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক শেখ শওকত আলীসহ মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রদান, কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিশিষ্ট্য ব্যক্তিবর্গ ও গণমাধ্যমকর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।