সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জে বন্দুক যুদ্ধে ৩ দস্যু নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক

সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)এর সাথে বন্ধুক যুদ্ধে তিন দস্যু নিহত হয়েছে। সোমবার সকাল সাতটার দিকে চাঁদপাই রেঞ্জের চরাপুঠিয়া এলাকায় খোন্তা কোদালিয়া খালে এ বন্ধুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পরে ঘটনাস্থল তল্যাসি করে ৪টি আগ্নেয়াস্ত্র, ১টি নৌকা, বেশকিছু গোলাবারুদ ও দস্যুদের ব্যবহৃত বিভিন্ন ষরঞ্জাম উদ্ধার করে র‌্যাব সদস্যরা।

নিহতরা হলেন, বনদস্যু রানা বাহিনীর প্রধান পান্না ওরফে রানা ও তার সহযোগী জুলহাস এবং কামরুজ্জামান। এদের সবার বাড়ি জেলার মোরেলগঞ্জ উপজেলায়।

র‌্যাব ৬ এর স্পেশাল কোম্পানী  কমান্ডার মো: শামিম সরকার বলেন, নিয়মিত টহলের অংশ হিসেবে সোমবার সকালে র‌্যাব সদস্যরা চরাপুঠিয়া এলাকার খোন্তা কোদালিয়া খালের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে।পূর্ব থেকে লুকিয়ে থাকা বনদস্যুরা র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে র‌্যাব সদস্যদের উদ্দেশ্য করে গুলি ছোড়ে। র‌্যাব সদস্যরা পাল্টা গুলি ছোড়ে। দুই পক্ষের ঘন্টাব্যাপি ঘুলি বিনিময়ের পরে বনদস্যুরা পিছু হটে। পরে ঘটনাস্থল তল্যাসি করে তিন দস্যুর গুলিবিদ্ধ তিন দস্যুকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক দস্যুদের মৃত ঘোষনা করেন। নিহতদের মরদেহ মোংলা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল কবির বলেন, র‌্যাবের হস্তান্তরিত তিন দস্যুর মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।