বাগেরহাটে আল্লাদীর দায়িত্ব নিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা

বাগেরহাট প্রতিনিধি
গনমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর বাগেরহাট সদর উপজেলার গাবরখালী পালপাড়া এলাকার অসহায় বৃদ্ধা আল্লাদী রানী পালের দায়িত্ব নিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ তানজিল্লুর রহমান। বৃহস্পতিবার বিকেলে আল্লাদী রানী পালের বাড়িতে গিয়ে তাকে নগদ টাকা, বয়স্ক ভাতা কার্ড প্রদান করেন। আল্লাদীর বসাবসের জন্য দুই সপ্তাহের মধ্যে জন্য একটি ঘর করে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।
এসময় উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা ফজলে এলাহি, মাঠ পরিদর্শক সৈয়দ রওনাকুল ইসলাম, গোটাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ সমশের আলী, সাংবাদিক আলী আকবর টুটুল, এসএস শোহানসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ তানজিল্লুর রহমান বলেন, গনমাধ্যমে সংবাদ পেয়ে আমরা আল্লাদীর বাড়িতে এসেছি। তাকে নগদ সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা, বয়স্ক ভাতার কার্ড ও ত্রিশ কেজি চাল দিয়েছি। দুই সপ্তাহের মধ্যে তার থাকার জন্য একটি ঘর করে দেয়া হবে।
প্রতিবেশি ও এলাকাবাসি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার এমন উদ্যোগে স্বাগত জানিয়ে তারা বলেন, শত বছর বয়সী নারীকে সহযোগিতা করার জন্য আমরাও খুশি।
আল্লাদী রানী জীর্ণ শীর্ণ অনেক পুরোনো টিনের ছাপড়ার একটি ঘরে থাকেন। ঘরের কোন বারান্দা নেই। ঘরের ভেতর সামনের দিকে টালি তৈরির জন্য কিছু মাটি রাখা। একপাশে বেশ কিছু জ্বালানি কাঠ, অন্য পাশে রান্না ঘর। ঘরের মেঝে কিছু ফাকা যায়গা, রাত হলে ওই ফাকা যায়গায় পাটি বিছিয়ে মেয়ে রাধাকে নিয়ে পাটি বিছিয়ে রাত্রীযাপন করেন তিনি।
মেয়ে রাধা ঘর থেকে ঝুড়িতে করে টালিগুলে এনে মায়ের সামনে রাখেন। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত টালিগুলো ছিদ্র করেন এবং সাজিয়ে রাখেন তিনি এভাবে কাজ করে সময় কাটে মা-মেয়ের। তারপরও তিন বেলা ভাত-মাছ খেতে পারেন না তারা।