দেশের ১ কোটি ৮৫ লক্ষ লোক মৎস্যখাতের উপর নির্ভরশীল

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের ১ কোটি ৮৫ লক্ষ লোক মৎস্যখাত থেকে জীবন-জীবিকা নির্বাহ করেন ।এ হিসেবে মোট জনসংখ্যার ১১ শতাংশ মানুষ মৎস্য খাতের বিভিন্ন কার্যক্রমে নিয়োজিত।বিগত আট বছরে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে গড়ে বার্ষিক ৬ লক্ষাধিক গ্রামিন জনগোষ্ঠির কর্মসংস্থানের সুযোগ হচ্ছে মৎস্য খাতে।জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে বুধবার(১৭ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টায় বাগেরহাট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

বাগেরহাট জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মোঃ খালেদ কনকের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে বাগেরহাট চিংড়ি গবেষনা কেন্দ্রের মূখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. খান কামাল উদ্দিন, মৎস্য অধিদপ্তরের সিনিয়র সহকারি পরিচালক অমল কান্তি রায়, বাগেরহাট প্রেসক্লাবের সভাপতি আহাদ উদ্দিন হায়দার, সাধারণ সম্পাদক এ বাকী তালুকদার, সহ-সভাপতি নিহার রঞ্জন সাহা, সদর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এএসএম রাসেলসহ বাগেরহাটে কর্মরত গনমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

চিংড়ি গবেষনা কেন্দ্রের মূখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. খান কামাল উদ্দিন বলেন, চিংড়ি উৎপাদন ও রপ্তানীতে বাংলাদেশ বিশ্বে অন্যতম সম্ভাবনাময় একটি দেশ। বাগেরহাট জেলায় ৭২ হাজার ১৯০ হেক্টর জমিতে চিংড়ি চাষ হয়। তবে বর্তমানে গলদা-বাগদা চিংড়িতে বেশকিছু সমস্যা রয়েছে। যার কারণে বাগদা ও গলদা চিংড়ি চাষের পাশপাশি, হরিণা ও চাকা চিংড়ি চাষ করার জন্য গবেষনা চালানো হচ্ছে। প্রাথমিক গবেষনায় সাফল্যা পওয়া গেছে। ভবিষ্যতে হরিণা ও চাকা চিংড়ির মা মাছ সহজ লভ্য করে হ্যাচারিতে এ মাছের রেনু উৎপাদন করতে পারলে চিংড়ি উৎপাদনে একটি বিপ্লব আসবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।