বাগেরহাটে শিকদার বাড়িতে এবার ৮০১টি প্রতিমা নিয়ে দূর্গাপূজার আয়োজন

নিজস্ব প্রতিবেদক.
সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে বাগেরহাটের মন্ডপে মন্ডপে চলছে প্রতিমা তৈরীর কাজ। ভাষ্করা (কারিগররা) রাতদিন ব্যস্ত আছেন প্রতিমা তৈরীর কাজে। জেলার ৬২৪টি মন্ডপে মাটির কাজ শেষ করে কারিগররা প্রতিমায় রংতুলি ও সাজসজ্জার কাজ শুরু করেছেন।
তবে বাগেরহাটের পূজা মানেই সাধারণ মানুষের কাছে হাকিমপুর শিকদার বাড়ির পূজা মন্ডপ। গেল কয়েক বছরের ধারাবাহিকতায় এবছর ৮০১টি প্রতিমা নিয়ে থাকছে দেশের সব থেকে বড় এ মন্ডপের আয়োজন। গত বছর ছিল ৭০১টি প্রতিমা।
গত কয়েক বছর ধরে বাগেরহাট তথা দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় দূর্গাপূজাটি অনুষ্ঠিত হয় ব্যক্তি উদ্যোগে। বাগেরহাট সদর উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের হাকিমপুর গ্রামের সিকদারবাড়ি। বাগেরহাটে দূর্গা উৎসব মানেই সিকদার বাড়ির দূর্গাপূজা। গত ৮ বছর ধরে লিটন সিকদার নামে এক ব্যবসায়ী মহাধূমধামে দূর্গাপূজার আয়োজন করে আসছেন। দেশের বিভিন্ন জেলার পাশপাশি ভারত থেকেও এই পূজা দেখতে আসেন অনেক দর্শনার্থীরা। দূর্গা পূজা চলাকালে ওই এলাকা উৎসবের আমেজে পরিনত হয়।


এছাড়া বাগেরহাট সদরের কাড়াপাড়া ইউনিয়নের কাড়াপাড়া গ্রামের রামকৃষ্ণ সেবাশ্রমের সার্বজনীন পূজা মন্দির, চুলকাঠি বাজারের বণিকপাড়া সার্বজনীন পূজা মন্দির, পোলঘাট সার্বজনীন পূজা মন্দির এবং ফকিরহাট উপজেলার বেতাগা ইউনিয়নের বেতাগা মমতলা সার্বজনীন পূজা মন্ডগুলোতে বেশি সংখ্যক প্রতিমা তৈরির প্রতিযোগিতা চলছে।
প্রতিমা তৈরি সম্পন্ন হওয়ার আগেই অনেক দর্শনার্থী মন্ডপে আসা শুরু করেছেন। শিকদার বাড়ি পূজা মন্ডপ দেখে কেউ হতভাগ, আবার কেউ কেউ ধন্যবাদ জানান আয়োজকদের।
পাবনা থেকে আসা রাজিব রায় বলেন, আমরা শুনেছি বাগেরহাটে এত বড় আয়োজন, সুযোগ হলো তাই পাবনা থেকে এসে দেখলাম অনেক ভাল লাগলো,ধন্যবাদ আয়োজকদের।
শিকদার বাড়ি মন্ডপের মূল কারিগর (ভাস্কর) বিজয় কুমার বাছাড় বলেন, পবিত্র ধর্মগ্রন্থ রামায়ণ ও মহাভারতের চারযুগের দেবদেবীর নানা কাহিনী অবলম্বনে প্রতিমা তৈরী করা হয়েছে। ছয় মাস ধরে ১৫ জন কারিগর তাদের নিপূণ হাতে প্রতিমা তৈরীর কাজ করে চলেছেন। শেষ সময়ে রং তুলির কাজ পুরোদমে চলছে। তাদের এখন দম ফেলার সময় নেই।


বাগেরহাট অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মাহফুজ আফজাল বলেন, আসন্ন সারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে নিরাপত্তা দিতে বাগেরহাটে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। বাগেরহাট জেলায় ৬২৪ টির মত মন্ডপে দূর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। শান্তিপূর্ণভাবে দূর্গোৎসব শেষ করতে সব প্রস্তুতি পুলিশের রয়েছে।
আগামী ৪ অক্টোবর মহালয়ার মধ্যে দিয়ে শারদীয় দূর্গোৎসবের শুভ সূচনা হবে। দেবীদূর্গা এবছর ঘোড়ায় চড়ে আসবেন আর যাবেনও ঘোড়ায় । ৪ অক্টোবর থেকে ৮ অক্টোবর দূর্গাপূজা চলবে।