বাগেরহাটে দুই আ.লীগ নেতা হত্যাকান্ডের ১ বছর, সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধি.
বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনছার আলী দিহিদার ও উপজেলা যুব লীগের সহ-সভাপতি শেখ শুকুরকে হত্যার এক বছর পূর্তিতে হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে এলাকাবাসীর উদ্যোগে উপজেলার দৈবজ্ঞহাটি বাজারে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে, নিহতের পরিবারের সদস্য, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী, বাজারের ব্যবসায়ী ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাসহ দুই সহ¯্রাধিক লোক অংশগ্রহন করেন।
মানববন্ধনে বক্তব্য দেন, নিহত আওয়ামী লীগ নতো আনছার আলী দিহিদারের ছেলে মেহেদী হাসান শাওন, মেয়ে সাবরিনা আফরিন সুমি, স্ত্রী মঞ্জ বেগম, নিহত শেখ শুকরের ভাই দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ ফারুক হোসেন, দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোসা. পারুল আক্তার, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি খান কিসলুর রহমান, ইউপি সদস্য হায়দার আলী বেগ, স্বেচ্ছা সেবক লীগের সাবেক সভাপতি আকন হাবিবুর রহমান প্রমুখ।


বক্তারা বলেন, দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনছার আলী দিহিদার ও উপজেলা যুব লীগের সহ-সভাপতি শেখ শুকুরকে নির্মম ভাবে হত্যা করে দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফকির শহিদুল ইসলামসহ চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা। হত্যার এক বছর হলেও হত্যার সাথে জড়িত অনেক সন্ত্রাসী এখনও প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। হত্যার সাথে সংশ্লিষ্ট যারা গ্রেফতার হয়েছে তাদের দ্রুত সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড দিতে হবে। যেসব আসামী এখনও গ্রেফতার হয়নি তাদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান বক্তারা। যারা জামিনে বের হয়েছে তারা এখন নিহতদের পরিবারকে হুমকী-ধামকী দিচ্ছে বলে জানান মামলার বাদি। আমরা প্রতিকার চাই।
২০১৮ সালের ১লা অক্টোবর দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনছার আলী দিহিদার ও উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি শেখ শুকুরকে দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন পরিষদের তৎকালীন চেয়ারম্যান ফকির শহিদুল ইসলামসহ সন্ত্রাসীরা নির্মমভাবে হত্যা করে। ৪ অক্টোবর রাতে মোরেলগঞ্জ থানায় নিহত শেখ শুকরের ভাই শেখ ফারুক হোসেন বাদী হয়ে হত্যা মামলা করেন। চলতি বছরের ৪ জুন পুলিশ ৫৮ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। এর মধ্যে প্রধান আসামী ২ অক্টোবর দৈবজ্ঞহাটি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফকির শহিদুল ইসলামসহ অনেকেই জেল হাজতে রয়েছেন বলে জানিয়েছে মোরেলগঞ্জ থানা পুলিশ।