রামপালে আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে ঘিরে দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা

রামপাল প্রতিনিধি
বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার গৌরম্ভা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন কেন্দ্র করে সদস্য যাচাই-বাছাই নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। দফায় দফায় মিছিল ও সভার মাধ্যমে নিজেদের অবস্থান জানান দিচ্ছে দুটি পক্ষ। তবে প্রকৃত ও ত্যাগী নেতাকর্মীদের নিয়ে কমিটি গঠনের দাবি জানিয়েছেন দলীয় কর্মীরা।
বুধবার সকালে উপজেলার গৌরম্ভা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে ইউনিয়ন কমিটি গঠনের জন্য সদস্য সংগ্রহের তালিকা যাচাই-বাছাইয়ের কার্যক্রম শুরু হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের উপস্থিতিতে যাচাই-বাছাই অনুষ্ঠানে বর্তমান সভাপতি মোঃ সেলিম সরদার এবং সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান গাজী গিয়াস উদ্দিনের মধ্যে মতবিরোধ সৃষ্টি হয়। এসময় সভাপতি মোঃ সেলিম সরদার বাছাই তালিকা নিয়ে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন। পরে তিনি কয়েকশ নেতাকর্মী নিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। সমাবেশে তিনি অভিযোগ করেন, বিগত সময়ে আওয়ামী লীগ নেতা মল্লিক নূর মোহাম্মদসহ অত্র ইউনিয়নের ৬জন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী নিহত হন। যারা ওই হত্যার সাথে জড়িত তাদের নিয়ে গিয়াস উদ্দিন গাজী সদস্য তালিকা তৈরি করেছেন। যার ফলে বাদ পড়তে যাচ্ছে আওয়ামী লীগের প্রকৃত ত্যাগী নেতাকর্মীরা। এটা আমরা কোনোভাবে মেনে নিব না। তিনি এব্যাপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও খুলনা সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক এবং উপ-মন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার এর জোর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন, ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি আব্দুল অহিদ বয়াতি, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ ফরহাদ হোসেন, আমজাদ হোসেন, মাইনুল গাজী, যুবলীগ নেতা মিজানুর রহমান গাজী, মল্লিক সাজ্জাদ হোসেন প্রমুখ। বক্তারা তালুকদার আব্দুল খালেক এর মাধ্যমে যাচাই-বাছাই করে প্রকৃত ত্যাগী নেতাকর্মীদের নিয়ে কমিটি গঠনের জোর দাবি জানান।
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান গাজী গিয়াস উদ্দিন, উপজেলা পর্যায়ের সকল নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে সঠিকভাবে সদস্য সংগ্রহের কার্যক্রম অব্যহত আছে।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব শেখ আব্দুল ওহাব জানান, সঠিক প্রক্রিয়ায় যাচাই-বাছাই করে সদস্য তালিকাভূক্ত করা হবে।