কচুয়ায় স্বেচ্ছাশ্রমে কৃষকের ধান কেটে দিলেন শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীরা

আব্দুল্লাহ আল ইমরান. বাগেরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ তন্ময়ের নির্দেশে চলমান করোনা পরিস্থিতিতে কৃষকদের ধান কেটে দিচ্ছেন কচুয়া উপজেলা শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীরা। মঙ্গলবার সকালে কচুয়া উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি খান শহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে মঘিয়া ইউনিয়নের সহবৎকাঠী, আন্ধার মানিক, পঙ্গুমার্কেট এলাকার কৃষক নিপুন রায়,কামরুল দরানীর তিন বিঘা জমির ধান কেটে বাড়ি পৌছে দেয় শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীরা। এ পর্যন্ত কচুয়া উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি খান শহিদুল ইসলামের নেতৃত্বে কচুয়া উপজেলায় বিভিন্ন এলাকায় অসহায় কৃষকের প্রায় ১০ বিঘা জমির কেটে দেওয়া হয়েছে। স্বেচ্ছাশ্রমে কৃষকের ধান কাটা কর্মসূচিতে উপজেলা শ্রমিক লীগ নেতা নিপুন রায়, হাফিজুল শেখ, খেলো বেপারি, মঘিয়া ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের সভাপতি চান শেখ, শ্রমিক লীগ নেতা রিপন মিনা,তরিক শেখ, মাজেদুল শেখ, মেহেদি শেখ,আলামিন শেখ,জসিম সরদার,শাকিল খান,সাধীন সরদার, আজিজুল শেখসহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। করোনা পরিস্থিতি ও অতি বৃষ্টির মধ্যে পাকা ধান কেটে দেওয়ায় খুশি হয়েছেন কৃষকরা। কৃষক মোঃ কামরুল দরানী বলেন, বৃষ্টির মধ্যে পাকা ধান নিয়ে খুব চিন্তায় ছিলাম। এর মধ্যে শ্রমিক লীগের নেতারা আমাদের ধান কেটে দিয়েছেন। আমি খুব খুশি হয়েছি।

মঘিয়া ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ চান শেখ বলেন, বোরা মৌসুমে দক্ষিনাঞ্চলের কৃষকরা ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যে ধান রোপন করেছিল। কিন্তু করোনা পরিস্তিতিতে শ্রমিক সংকটের কারণে কৃষকরা ধান ঘরে তোলা নিয়ে শঙ্কায় ছিলেন। তাই আমরা স্বেচ্ছাশ্রমে কৃষকদের ধান কেটে বাড়িতে পৌছে দিচ্ছি। কোন কৃষকদের ধান আমরা মাঠে নষ্ট হতে দিব না। সকল কৃষকের ধান ঘরে তোলা পর্যন্ত আমাদের কর্মীরা মাঠে থাকবে বলে দাবি করেন তিনি।

কচুয়া উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি খান শহিদুল ইসলাম বলেন, করোনা পরিস্থিতি ও অতি বৃষ্টির মধ্যে পাকা ধান নিয়ে সমস্যায় পড়েছিল কৃষকরা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আসনের বাগেরহাট-২ সংসদ সদস্য শেখ তন্ময়ের নির্দেশে আমরা উপজেলার হতদরিদ্র, গরীব ও বর্গা চাষীদের ধান কেটে দিচ্ছি। সকল কৃষকের ধান কাটা শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমাদের এই ধান কাটা অব্যাহত থাকবে।

বাগেরহাট জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি রেজাউর রহমান মন্টু বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে বাগেরহাট-২ সংসদ সদস্য শেখ তন্ময়ের নির্দেশনায় আমরা কর্মীদের নিয়ে কৃষকদের ধান কেটে দিচ্ছি। অন্যান্য উপজেলায়ও কৃষকদের ধান কাটা হবে। সকল কৃষকদের ধান কাটা শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমাদের এই কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।