শরণখোলা উপজেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনে আ‘লীগ, বিএনপি ও জাপা প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল

নিজস্ব প্রতিবেদক. বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রায়হান উদ্দিন শান্ত ও বিএনপি মনোনীত খান মতিয়ার রহমান শরণখোলা উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা অঞ্জন সরকারের কাছে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন।বিকেলে জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী এ্যাড. শহিদুল ইসলাম জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার দপ্তরে মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।
এছাড়া এসব পদে জেলার মোল্লাহাট উপজেলার কোদালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে একমাত্র প্র্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগ মনোনীত শেখ রফিকুল ইসলাম মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন। এছাড়া জেলার রামপালের রাজ নগর ইউনিয়নের ২ নং সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে উপ-নির্বাচনে টুম্পা ঘোষ ও মোসাঃ সুফিয়া মুরাদ খুশি মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।পঞ্চকরণ ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের সদস্য পদে মোঃ মহিউদ্দিন হাওলাদার, মোঃ শহিদুল ইসলাম খান, ফরিদা বেগম ও মোঃ সোলায়মান শিকদার মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছেন।
আওয়ামী লীগ মনোননীত প্রার্থী রায়হান উদ্দিন শান্ত মনোনয়ন পত্র জমাদানের সময় শরণখোলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আজমল হোসেন মুক্তা, সাংগঠনিক সম্পাদক সাব্বির আহমেদ মুক্তা, শরণখোলা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান পারভেজ, ইউপি চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপি মনোনীত প্রার্থী খোন্তাকাটা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি খান মতিয়ার রহমান মনোনয়ন পত্র জমাদানের সময় জেলা বিএনপির আহবায়ক আকরাম হোসেন তালিম, সদস্য সচিব মোজাফফর রহমান আলম, সদস্য মনিরুল হক ফরাজী, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুজাউদ্দিন মোল্লা সুজন, বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেন পঞ্চায়েত উপস্থিত ছিলেন। দুই দলের নেতাকর্মীরাই এই নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে আশা প্রকাশ করেছেন।
বাগেরহাট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও উপ-নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ফরাজী বেনজীর আহমেদ বলেন, মনোননয়পত্র জমাদানের শেষ দিনে আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি ও বিএনপি মনোনীত তিনজন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। এই পদে কোন সতন্ত্রপ্রার্থী মনোনয়ন পত্র দাখিল করেননি।
২০১৯ সালের ৫ ডিসেম্বর শরণখোলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন আকন মারা গেলে পদটি শূন্য হয়।দীর্ঘ ১০ মাস পরে ১৪ সেপ্টেম্বর নির্বাচন কমিশন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করেন।তফসিল অনুযায়ী ২৩ সেপ্টেম্বর মনোনয়ন পত্র জমাদানের শেষ তারিখ। ২৬ সেপ্টেম্বর যাচাই-বাছাই, ৩ অক্টোবরের মধ্যে প্রার্থীতা প্রত্যাহার এবং ২০ অক্টোবর ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও একই দিনে জেলার মোল্লাহাট উপজেলার কোদালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে, মোরেলগঞ্জ উপজেলার পঞ্চকরণ ইউনিয়ন পরিষদের চার নং ওয়ার্ড সদস্য এবং রামপাল উপজেলার রাজনগর ইউনিয়নের দুই নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত সদস্য পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।