‘মোরেলগঞ্জেবিকাশের পিন নাম্বার না বলায় হত্যা করা হয় হানিফকে’

নিজস্ব প্রতিবেদক. বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে চা দোকানি আবু হানিফ ফকিরকে হত্যার ঘটনায় তিন যুবককে আটক করেছে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে আটকৃতদের আদালতে সোপর্দ করেছে মোরলগঞ্জ থানা পুলিশ।

আটকরা হলেন, মোরেলগঞ্জ উপজেলার খারইখালী গ্রামের তরিকুল ইসলাম (২০), বাদল সরদার (৩০) এবং সাকিব শেখ (১৯)। বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) গভীর রাতে খারইখালী গ্রামের বিভিন্ন জায়গা থেকে এদের আটক করলেও তদন্তের স্বার্থে আদালতে সোপর্দের আগ মুহুর্তে সাংবাদিকদের জানানো হয়।আটক তরিকুলের কাছ থেকে আবু হানিফ খলিফার ব্যবহৃত একটি টর্চ লাইট উদ্ধার করে পুলিশ। এছাড়াও হত্যার সাথে জড়িত বেশকিছু আলামত উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মোরেলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, আবু হানিফের মরদেহ উদ্ধারের পর থেকে পুলিশ ওই এলাকায় অভিযান শুরু করে। গভীর রাতে তিনজনকে আটক করা হয়। আটক সবাই আবু হানিফের বন্ধু।এদের মধ্যে তরিকুল ইসলামের কাছ থেকে হানিফের ব্যবহৃত একটি টর্চ লাইট উদ্ধার করা হয়েছে।

আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ ও প্রাথমিক তদন্তে আমরা জানতে পেরেছি আবু হানিফ পোশাক কারখানায় চাকুরী করতেন। করোনাকালীন সময়ে বাড়িতে এসে চায়ের দোকান দেন। চাকুরী কালীন সময়ে তার বেশকিছু টাকা বাকি ছিল কারখানা মালিকের কাছে।বাকি টাকা ও প্রনোদনা মিলিয়ে তার বিকাশ একাউন্টে প্রায় এক লক্ষ টাকা ছিল। ওই টাকা হাতিয়ে নেওয়ার জন্য আবু হানিফের কাছে মোবাইল ও বিকাশের পিন নাম্বার চায় হত্যাকারীরা। দিতে অস্বীকৃতি জানালে তার মাথায় এলাপাথারী কুপিয়ে হত্যা করা হয় আবু হানিফকে। এ ঘটনায় শুক্রবার হত্যার শিকার আবু হানিফের মা বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামী দিয়ে মোরেলগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।