কচুয়ায় ভুল অপারেশনে মৃত্যুর অভিযোগে চিকিৎসকের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি

নিজস্ব প্রতিবেদক. বাগেরহাটের কচুয়ায় চিকিৎসকের ভুল অপারেশনে রোগী মৃত্যুর ঘটনায় কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মঞ্জুরুল করিমের অবহেলার বিষয়টি খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।সোমবার (০২ নভেম্বর) বাগেরহাট সদর হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের কনসালটেন্ট ডা. আরিফুলকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেন সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন, বাগেরহাট সদর হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. জুনায়েদ সাফার মাহমুদ এবং সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা. সুব্রত দাস।
বাগেরহাটের সিভিল সার্জন ডা. কেএম হুমায়ুন কবির বলেন, ডা. মঞ্জুরুল করিমের ভুল অপারেশনের কারণে আকবর শেখ নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে নিহতের পরিবার। ওই অভিযোগের সত্যতা যাচাই করতে আমরা তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। এই কমিটিকে আগামী পাঁচ কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।তদন্ত কমিটির রিপোর্টে কর্তব্যে অবহেলার সত্যতা পাওয়া গেলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করার আশ্বাস দেন তিনি।
উল্লেখ, ১৯ অক্টোবর পেটে ব্যাথা নিয়ে কচুয়া উপজেলার মাধবকাঠি গ্রামের আবুল বাশার শেখের ছেলে আকবর শেখ (২৫) পেটে ব্যাথা নিয়ে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়। সেখানে পরীক্ষা নিরিক্ষা শেষে চিকিৎসকরা বলে তার এপেন্ডিসাইটিস হয়েছে, অপারেশন করতে হবে। চিকিৎসকদের কথা অনুযায়ী ২০ অক্টোবর সকালে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোঃ মনজুরুল আলম তার অপারেশন করেন। অপারেশনের পর থেকে আকবরের শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। ২২ অক্টোবর কচুয়া হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন কচুয়ার চিকিৎসকরা। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৬ অক্টোবর আকবর শেখ মারা যায়। চিকিৎসকের ভুল অপারেশনে ছেলের মৃত্যু হয়েছে বলে চিকিৎসক কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মনজুরুল আলমের শাস্তির দাবিতে ২৮ অক্টোবর কচুয়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে নিহতের পরিবার। ওইদিন দুপুরে বাগেরহাটের সিভিল সার্জন বরাবরও লিখিত অভিযোগ দেয় নিহত আকবর শেখের পিতা।