মোংলায় ড. হিমেল বরকত চির নিদ্রায় শায়িত

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ব বিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ও কবি-সাহিত্যিক, গবেষক ড. হিমেল বরকতের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। সোমবার সকাল ১০টায় মোংলার মিঠাখালী ফুটবল মাঠে মরহুমের জানাযা নামাজ শেষে তাকে মিঠাখালীর নিজ বাড়ীর পারিবারকি কবরস্থানে মায়ের কবরের পাশে শায়িত করা হয়েছে। তার জানাযা অনুষ্ঠানে স্থানীয় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দসহ সর্বস্তরের বিপুল সংখ্যক লোকজন অংশ নেন। এ সময় মরহুমের জন্য তার পরিবারের পক্ষ থেকে সকলের কাছে দোয়া চান তার ভাই ডা: মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ, আবির আব্দুল্লাহ, সুবির ওবায়েদ, সুমেল সারাফাতা ও ভগ্নিপতি মাহমুদ হাসান ছোট মনি। জানাযা নামাজের পূর্বমুহুর্তে মরহুমের জীবনী নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ইদ্রিস আলী, পৌর মেয়র আলহাজ্ব মো: জুলফিকার আলী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম হোসেন ও হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিন, মাওলানা তৈয়বুর রহমান, মাওলানা আ: রহমানসহ অন্যান্যরা।
ড. হিমেল বরকত ছিলেন কবি প্রয়াত রুদ্র মুহাম্মদ শহিদুল্লাহর ছোট ভাই। এবং মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের সাবেক ডক শ্রমিক পরিচালনা বোর্ডের ডাক্তার মরহুম ওয়ালিউল্লাহর ছোট ছেলে ছিলেন হিমেল।
গত শনিবার সকালে অনলাইনে ক্লাস নেয়ার সময় হঠাৎ হার্ট এ্যাটাক করলে তাকে তাৎক্ষনিক ঢাকা বারডেম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় রবিবার ভোর রাত সাড়ে ৪টার দিকে তার মৃত্যু হয়। ওইদিন বিকেলে তার প্রিয় কর্মস্থল জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে প্রথম জানাযা শেষে তাকে মোংলার মিঠাখালীর নিজ বাড়ীতে আনা হয়। এরপর সেখানেই তাকে চির নিদ্রায় শায়িত করা হয়েছে। মরহুম হিমেল স্ত্রী ও এক কন্যা সন্তানসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন ও গুনগ্রাহী রেখে গেছে। তার অকাল মৃতুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে মিঠাখালীসহ পুরো মোংলা জুড়ে।