নাতীর কোলে এসে ভোট দিলেন ১০৪ বছর বয়সী ফাতেমা

নিজস্ব প্রতিবেদক. বয়সের ভারে নতজানু। শরীরের শক্তিও শেষ প্রায়। নিজ পায়ে দাড়াতে পারলেও, হাটতে হয় নাতী-নাতনির সহায়তায়। খাবার সামনে আসলে, খেতে পারেন একাই। চিকিৎসকের কাছে যাওয়া ছাড়া বাড়ি থেকে বের হন না প্রায় দশ বছর হল। তারপরও ভোট দিতে হবে ১০৪ বছর বয়সী ফাতেমা বেগমের। দাদীর এমন বায়নায় কিছু বিরক্ত হলেও বৃদ্ধ দাদীকে খুশি রাখতে কোলে করে ভোট কেন্দ্রে নিয়ে আসছেন ৩৮ বছর বয়সী নাতী মোঃ কামাল শেখ।

শনিবার (৩০ জানুয়ারি) দুপুর দুইটায় মোরেলগঞ্জ পৌরসভার

৯নং ওয়ার্ড পশ্চিম সানকিভাংগা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দেন ওই কেন্দ্রের সব থেকে বয়জেষ্ঠ ভোটার। ভোট দিয়ে বের হয়ে তৃপ্তির হাসি হাসেন এই বৃদ্ধ। এত কষ্ট করে কেন ভোট দিতে এসেছেন এমন প্রশ্নে ফিসফিস করে বলেন ভোট দিতে আমার ভাল লাগে। কখন মারা যাব তা তে বলা যায় না। তাই ভোট সামনে আসছে ভোট দিয়ে গেলাম।

ফাতেমা সানকিভাংগা এলাকার আয়জদ্দিন শেখের স্ত্রী। ভোটার তালিকা  অনুযায়ী ১৯১৭ সালের ৩ সেপ্টেম্বর এই বৃদ্ধার জন্ম। সে অনুযায়ী একশ চার বছর বয়স হয় ফাতেমার। তবে স্থানীয় ও তার স্বজনদের দাবি ফাতেমার বয়স ১১৫ বছর। ৬ ছেলে ও দুই মেয়ের জননী এই নারীর ৪০ জনের মত নাতী-নাতনী রয়েছেন।

স্থানীয় ৬০ বছর বয়সী আবুবকর সিদ্দিক বলেন, আমরা বোঝার পর থেকেই দেখি ফাতেমা বেগম বৃদ্ধ। তার বড় ছেলে সাবেক ইউপি সদস্য নুর মোহাম্মাদের বয়সও প্রায় ৯০ এর কাছাকাছি। এলাকার সব থেকে বয়সী মানুষ হিসেবে ফাতেমাকে সবাই ভালবাসে এবং শ্রদ্দা করে। আমরা তার সুস্থতা কামনা করি।

ফাতেমার নাতী মোঃ কামাল শেখ বলেন, আমার চাচা ও ফুপুরা সবাই বৃদ্ধ হয়ে গেছে। দাদী অনেক দিন ধরে ঘরবন্দী। চোখে দেখলেও কানে কিছুটা কম শোনেন তিনি। তারপরও ভোটের কথা শুনে ভোট দেওয়ার ইচ্ছাপোষন করেন তিনি। আমরা নিরুৎসাহিত করলেও তিনি কেন্দ্রে যাওয়ার ব্যাপারে জোরাজুরি করেন। পরে বাধ্য হয়ে দাদীকে খুশি রাখতে ভোট দেওয়াতে নিয়ে আসছি।

মোরেলগঞ্জ পৌরসভায় শুধুমাত্র কাউন্সিলর পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ৯টি সাধারণ ওয়ার্ডে ৪৩ জন এবং ৩টি সংরক্ষিত মাহিলা ওয়ার্ডে ১২জন কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দীতা করছেন। ৯টি কেন্দ্রে ১৬ হাজার ৫‘শ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।এর মধ্যে ৮ হাজার ৮৬ জন পুরুষ এবং ৮ হাজার ৪‘শ ১৪ জন নারী ভোটার রয়েছেন।সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোট গ্রহন সম্পন্ন হবে।