বাগেরহাটে শিক্ষক-কর্মচারী সমবায় সমিতির দুই কোটি টাকা আত্মসাত, ব্যবস্থাপক গ্রেফতার

Favicon

নিজস্ব প্রতিবেদক. বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে শিক্ষক-কর্মচারী কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লীগের (কালব্) টাকা আত্মসাতের মামলায় ম্যানেজার ফরিদ উদ্দিনকে (৩২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার (৩০ আগস্ট) গভীর রাতে মোরেলগঞ্জ উপজেলা সদর থেকে ফরিদকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর আগে ওই রাতেই ১ কোটি ৯৬ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে ম্যানেজার ফরিদসহ পাঁচজনকে আসামীকে করে মামলা দায়ের করেন কালবের মোরেলগঞ্জ উপজেলা শাখার চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম হাওলাদার। মঙ্গলবার দুপুরে গ্রেফতার ফরিদ উদ্দিনকে জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্টেট আদালত-১ এ আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ। আদালতের বিচারক সমির মল্লিক ফরিদ উদ্দিনকে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দিয়েছেন। অন্য আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ।

গ্রেফতার যশোর জেলার মনিরামপুর উপজেলার পারখাজুরা গ্রামের আমির হোসেনের ছেলে। সে শিক্ষক-কর্মচারী কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লীগের (কালব্) এর মোরেলগঞ্জ শাখায় ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন। মামলার অন্য আসামীরা হলেন, মোরেলগঞ্জের মা-বাবার ঋণ কলেজের অধ্যক্ষ সাবিনা ইয়াসমিন (৪৫), বিএসএস দাখিল মাদ্রাসার সহকারি সুপার মো. মুঈন উদ্দিন হিরু (৩৯), রওশন আরা স্মৃতি মহিলা ডিগ্রী কলেজের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক শেখ নজরুল ইসলাম (৪৫) ও স্থানীয়  মো. আবুল কালাম আজাদ মল্লিক।

মামলা সূত্রে জানাযায়,  ২০২০ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারী থেকে ২০২১ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে পরিচালনা পরিষদ ও উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের স্বাক্ষর জাল করে ১ কোটি ৯৬ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছে কালব মোরেলগঞ্জ শাখার ম্যানেজার ফরিদ উদ্দিন ও অন্যান্য আসামীরা। আত্মসাতকৃত সকল টাকা রূপালী ব্যাংক লিঃ, মোরেলগঞ্জ উপজেলার বারইখালী শাখার এসটিডি-১৩ নং সঞ্চয়ী হিসাব থেকে তোলা হয়েছে। এই টাকা আত্মসাৎ করতে প্রায় ৪০ জন সদস্যদের জাতীয় পরিচয় পত্র, কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানের সীল ও স্বাক্ষর জাল করা হয়েছে। রূপালী ব্যাংক বারইখালী শাখা থেকে রেজিষ্ট্রারে এন্ট্রি ছাড়া কিছু চেকবইও সংগ্রহ করেছে চক্রটি। সমিতির রেজুলেশন খাতাও নকল করেছে চক্রটি।

কালব্ মোরেলগঞ্জ শাখার চেয়ারম্যান ও এসিলাহা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালাম হাওলাদার বলেন, ২০২০ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারী থেকে ২০২১ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ব্যাংক হিসেব পর্যালোচনা করে দেখা যায় কালব মোরেলগঞ্জ শাখা থেকে তিন কোটি ৬৬ লক্ষ ১৯ হাজার টাকা শিক্ষকদের মাঝে ঋণ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে জাতীয় পরিচয় পত্র, কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানের সীল ও স্বাক্ষর জাল করে ১ কোটি ৯৬ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন ম্যানেজার ও অন্য আসামীরা। বিষয়টি কালবের কেন্দ্রীয় কমিটিকে অবহিত করলে তারা কয়েকবার অডিট করেন। অডিটে বিষয়টির সত্যতা পাওয়ায়, কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশে আমি মামলা দায়ের করেছি। শিক্ষকদের টাকা যারা এভাবে প্রতারণার মাধ্যমে আত্মসাত করেছে তাদের কঠিন শাস্তির দাবি জানান অবসরপ্রাপ্ত এই শিক্ষক।

মোরেলগঞ্জ থানার এসআই সুফল সরকার বলেন, আব্দুস সালাম হাওলাদারের অভিযোগের ভিত্তিতে  নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার প্রধান আসামী ফরিদ উদ্দিনকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। অন্য আসামীদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি।